শিরোনাম

প্রকাশঃ Wed, Mar 15, 2023 7:42 PM
আপডেটঃ Thu, Feb 22, 2024 9:56 AM


ইতালি নেওয়ার প্রলোভনে যুবকের সর্বনাশ: প্রতারক আব্দুস সত্তার গ্রেফতার

ইতালি নেওয়ার প্রলোভনে যুবকের সর্বনাশ: প্রতারক আব্দুস সত্তার গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার।।

চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানা এলাকা থেকে প্রতারক আব্দুস সত্তারকে (৫০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আব্দুস সত্তারের বিরুদ্ধে বিদেশ লোক পাঠানোর নামে প্রতারণা মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা থাকায় পাঁচলাইশ থানা পুলিশ এক অভিযানে তাকে গ্রেফতার করে।  





জানা যায়, ফরিদপুরের নগরকান্দা এলাকার হুমায়ূন কবির (৩৪) নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে ইতালি পাঠানোর নামে মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে আব্দুস সত্তার ও তার সঙ্গীরা ৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। এর আগে ইতালি যেতে সত্তার দাবি করে ১২ লাখ টাকা।


২০২২ সালের ১০ আগস্ট আব্দুস সত্তারসহ আরও তিনজন হুমায়ুনের কাছ থেকে নগদ ৫ লাখ টাকা গ্রহণ করে একটি লিখিত চুক্তি করে। আরও ২ লাখ টাকা দিলে তাঁরা ভুক্তভোগী হুমায়ুন কবিরকে ইতালি যাওয়ার ভিসা প্রদান করবে বলে প্রতিশ্রুতি দেয়। ভিসা পাওয়ার পর বাকি ৫ লাখ টাকা দিতে হবে এমন চুক্তিও হয় তাদের মধ্যে। 

এরপর চুক্তি অনুযায়ী গত ৮ সেপ্টম্বর আব্দুস সত্তারসহ তার সঙ্গী গোলাম সরোয়ার রিপন (৩৬), মোহাম্মদ গোলাম (৫০) ও এহসানুল হককে (৪১) ২ লাখ টাকা প্রদান করেন হুমায়ুন কবির। টাকা পেয়ে প্রতারক আব্দুস সত্তার হুমায়ুনকে জানায় শিগগিরই তাকে ভিসা করে ইতালি পাঠিয়ে দেওয়া হবে। 

কিন্তু ইতালি পাঠানোর চুক্তিনামার মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও ভিসা না দিয়ে হুমায়ূনকে প্রতারক চক্র ঘোরাতে থাকে। একসময় আব্দুস সত্তার সিন্ডিকেট হুমায়ূনের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। 

এবিষয়ে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের ২৪ তারিখ হুমায়ুন কবির অর্থ লেনদেনের সাক্ষীদের নিয়ে আব্দুস সত্তারের বাড়িতে গিয়ে ইতালির ভিসা অথবা ৭ লাখ টাকা ফেরত চাইলে তাঁরা পুরো বিষয়টিকেই অস্বীকার করে। 

এই মামলার ২ ও ৩ নং আসামী প্রতারক আব্দুস সত্তারের জামাতা মানিকগঞ্জের মৃত গোলাম রব্বানী ওরফে ঠান্ডু মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ গোলাম, ও গোলাম সরয়ার রিপন এই আদম পাচারের নেপথ্যের কারিগর ও মূল সহযোগী। মোহাম্মদ গোলাম যার পৈত্রিক বাড়ী মানিকগঞ্জের আলিনগরে ও মামলার দ্বিতীয় আসামী তার ভাই গোলাম সরোয়ার রিপনের বাড়ি ধানমন্ডির ৭/এ নং রোডে। 


পরবর্তীতে হুমায়ুন মাদারীপুরের চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পুরো ঘটনা উল্লেখ করে আব্দুস সত্তারসহ চারজনকে আসামী করে একটা মামলা দায়ের করেন। সি আর মামলা নং ১৬৭/২৩। মামলাটির সত্যতা পাওয়ায় আদালত আব্দুস সত্তার ও তার প্রতারক চক্রকে গ্রেফতারের ওয়ারেন্ট ইস্যু করেন। গ্রেফতারি পরোয়ানা পাঁচলাইশ থানায় আসলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে আব্দুস সত্তারকে গ্রেফতার করে।


এ বিষয়ে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ জানায়, অভিযুক্ত আব্দুস সত্তারকে বুধবার দুপুরে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।



www.a2sys.co

আরো পড়ুন