প্রকাশঃ Sun, Feb 21, 2021 10:47 AM
আপডেটঃ Sun, Feb 28, 2021 12:06 AM


লামায় সাংবাদিকের পুত্র বধুকে ধর্ষনের চেষ্টা

লামায় সাংবাদিকের  পুত্র বধুকে ধর্ষনের চেষ্টা

লামা প্রতিনিধি,লামায় সাংবাদিক পুত্রবধুকে ধর্ষনের চেষ্টায় ব্যার্থ হয়ে আহত করে এক লম্পট। এ ব্যাপারে ১৯ ফেব্রুয়ারি রাতে লামা থানায় অভিযোগ হয়।





প্রাপ্ত অভিযোগে জানাযায়, উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ইয়াংছা শামুকছড়া ৭ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা সাইদুল ইসলামের স্ত্রী ১৭ ফেব্রুয়ারি বিকেলে প্রতিদিনকার ন্যয় পাশের ঝিরি থেকে গরু আনতে যায়। পথের মধ্যে একা পেয়ে তাকে অশ্লীল প্রস্তাব দেয় প্রতিবেশি নাসির উদ্দিন। এতে গৃহ বধু রাজি না হওয়ায়, কিল-ঘুষি ও লাথি মেরে তার উপর জোর প্রয়োগ করতে চায়। এসময় কোনমতে ছাড়া পেয়ে গৃহবধু দৌড়ে নিজেকে রক্ষা করেন। 




একই গ্রামের বাসিন্দা মোক্তার হোসেনের ছেলে লম্পট নাসির উদ্দিন তাকে পেছন থেকে দৌড়াতে থাকে। এক পর্যায়ে তিন সন্তানের জননী এই গৃহ বধুর চিৎকার শুনে পাশের মহিলারা এগিয়ে আসলে নাসির পালিয়ে যায়। ওইদিন সন্ধ্যায় আহত গৃহবধুকে পার্শ্ববর্তী চকরিয়া সিটি হাসপাতালে চিকিৎসা করান তাঁর স্বামী মো: সাইদুল ইসলাম, সাথে অভিযুক্ত নাসিরের পিতা মোক্তার হোসেনও ছিলেন বলে জানান সাইদুল।


বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসা না হওয়ায়, ১৯ ফেব্রুয়ারি ভিকটিমের স্বামী বাদী হয়ে লামা থানায় অভিযোগ করেন। এ অভিযোগের পর স্থানীয় কয়েকজন মিমাংসার প্রস্তাব দেয় বলে জানান সাইদুল।


এ ব্যাপারে লামা থানার ওসি মো: মিজানুর রহমান জানান, এ ধরণের একটি দরখাস্ত পেয়েছি, একজন অফিসারকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তদন্ত চলছে, সত্যতা প্রমাণিত হলে আইন ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় কামাল মেম্বার জানান, “কলাগাছ নিয়ে বিরোধের জের ধরে ঝগড়া ও মারপিট হয়। ধর্ষনের চেষ্টা বা শ্লীলতাহানীর বিষয়টি আমরা শুনি নাই”। 


এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের চকিদার আনোয়ার জানান, ১৭ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় হাসপাতাল নেয়ার পথে আহত মহিলা তাকে ঘটনার বিবরণ দিনে। সে জানায়, “আমাকে মুখ চেপে ধরে ধর্ষনের চেষ্টা করে। কিলঘুষি মারে”। তার গলায় আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়। স্থানীয়রা আরো জানায়, নাসির একজন লম্পট প্রকৃতির ছেলে।



ঘটনা জানার জন্য অভিযুক্ত নাসিরের মুঠো ফোনে কল দেওয়া হলে, সে ফোন রিসিভ করেন নাই।



www.a2sys.co

আরো পড়ুন