প্রকাশঃ Sun, May 7, 2023 8:42 PM
আপডেটঃ Fri, Jun 14, 2024 7:10 PM


প্রেমিকার পরিবারের পিটুনিতে প্রেমিক এর মৃত্যু, ছেলের মৃত্যুর খবরে বাবার মৃত্যু!

প্রেমিকার পরিবারের পিটুনিতে প্রেমিক এর মৃত্যু, ছেলের মৃত্যুর খবরে বাবার মৃত্যু!

ফাহিম মুনতাছিমঃ কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার মাঝিগাছার নন্দিরবাজার এলাকায় প্রেমিকার পরিবারের মারধরের শিকার হয়ে মাহিন মিয়া (২০)নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে


বৃহস্পতিবার রাত ১১ টায় মাহিন ঘরের বাহিরে গেলে, প্রেমিকা তন্নির বাবা (মূসা),চাচা (জাহাঙ্গীর) এবং ভাই মিলে মাহিনের মুখ চেপে তাদের উঠোনে নিয়ে যায়,সেখানে যোগ হয় প্রেমিকা তন্নির দাদী এবং চাচী।সকলে মিলে তাকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি দিতে থাকে একপর্যায়ে ইট  এবং বাঁশ দিয়ে তার  মাথায় এবং পিঠে আঘাত করে।


মার খেয়ে একপর্যায়ে সে রক্তবমি করে এবং মাটিতে লুটিয়ে পড়ে,পরে তার চিৎকারে তার পরিবারের লোকজন এবং স্থানীয় লোকজন জড়ো হয়ে তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায় সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রবিবার মারা যায় সে।


এদিকে ছেলের মৃত্যুর খবর পেয়ে বাবা হিরন মিয়া স্ট্রোক করে পরে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। একসাথে পরিবারের দুই সদস্যকে হারিয়ে পরিবারটিতে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। 


প্রেমিকা তন্নিকে এই ঘটনার ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে সে জানায়,"মাহিন এর সাথে তার অনেক আগ থেকেই আমার  সম্পর্ক, কিন্তু আমার বাবা, চাচা কেউ সম্পর্কটা মানতে পারে নি।গত বৃহস্পতিবার রাতে তারা মাহিনকে মুখ চেপে ধরে নিয়ে গিয়ে মারধর করে হত্যা করে আমি আমার বাবা চাচার বিচার চাই।

 

প্রেমিকা তন্নী মূসার পালিত মেয়ে।তন্নীদের বাড়ির সামনের বাড়িই হলো মাহিনদের বাড়ি,দীর্ঘদিন ধরে তাদের প্রেমের সম্পর্ক চলছিলো,তাদের এই সম্পর্কের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধিতা করে আসছিলো তন্নির পরিবার।এই বিরোধের জেরেই বৃহস্পতিবার রাত ১১ টায় মাহিনকে ডেকে নিয়ে  মারধর করে মারধরের পরে গুরতর অবস্থায় মাহিনকে হাসপাতালে নেয়া হলে ২ দিন পর রবিবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায় ।ছেলের মৃত্যু শোক সইতে না পেরে স্ট্রোক করে মারা যায় মাহিনের বাবাও।



এ ব্যাপারে সদর সার্কেলের এসপি কামরান বলেন,খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে আসি,ভিকটিম এর পরিবার এবং প্রেমিকা তন্নির জবানবন্দি নিয়েছি,ঘাতক কাউকে আমরা ঘটনাস্থলে পাইনি,বৃহস্পতিবার রাতের ঘটনাটি আমরা আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে খতিয়ে দেখছি,আশা করছি খুব শীঘ্রই আসামিদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হবো।



www.a2sys.co

আরো পড়ুন