শিরোনাম

প্রকাশঃ Sat, Jun 22, 2024 11:26 PM
আপডেটঃ Wed, Jul 24, 2024 12:25 PM


পূর্ব বাংলার প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন মুজাফ্ফার রহ. এর নাম বাদ দিয়ে এ কেমন তালিকা?

পূর্ব বাংলার প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন মুজাফ্ফার রহ. এর নাম বাদ দিয়ে এ কেমন তালিকা?

দক্ষিণ পূর্ব বাংলার প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন মুজাফ্ফার রহ. এর নাম বাদ দিয়ে এ কেমন তালিকা?

হযরত মাওলানা মুজাফ্ফার আহমদ রহ. একটি নাম শুধু নয় বরং তিনি ছিলেন অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত এবং তিনি নিজেই একটি ইতিহাস।
তিনি একাধারে
✓হাকীমুল উম্মত আশরাফ আলী থানভী রহ. এর সহপাঠী
✓দারুল উলূম দেওবন্দে হযরত মাওলানা ইয়াকুব নানুতুবী রহ. ছাত্র
✓ঢাকার বড় কাটারা মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা মাওলানা আব্দুল ওয়াহাব পীরজী হুজুর রহ. এর পরম শ্রদ্ধাভাজন শশুর
✓বাংলাদেশের অন্যতম প্রাচীন দ্বীনী মারকাজ জামিয়া ইসলামিয়া মুজাফ্ফারুল উলূম মুরাদনগর কুমিল্লার প্রতিষ্ঠাতা। যা তিনি ১৮৯২ সালে প্রতিষ্ঠা করেন। উম্মুল মাদারিস দারুল উলুম মূঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসার আরো ৯ বছর পূর্বে।
✓তিনি দেওদন্দের ঐ ছাত্র যাকে দারুল উলুমের উস্তাদ হিসেবে রেখে দেওয়ার প্রস্তাব দেয়া হলে তিনি ইস্তেখারা করেন। স্বপ্নে দেখেন, তাঁকে বলা হচ্ছে, যেখানে আলো নেই সেখানে আলো জ্বালাও। ফলশ্রুতিতে উস্তাদদের থেকে বিনয়ের সাথে বিদায় নিয়ে নিজ এলাকা তত্কালীন ত্রিপুরা রাজ্যের মুরাদনগরে মুজাফ্ফারুল উলূম মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেন
✓তিনি শিরক বিদাতে আচ্ছাদিত ত্রিপুরার এ অঞ্চলে খাঁটি তাওহীদ ও সুন্নাহ প্রতিষ্ঠায় সারাজীবন ওয়াজ নসীহত, কিতাবাদি রচনা ও সংকলন এবং বাহাস মুনাজারার মাধ্যমে উম্মতের ইসলাহের দ্বায়িত্ব পালন করার কারনে তৎকালীন বড় বড় আলেমগণ তাঁকে "মুসলিহে উম্মাত" উপাধিতে ভূষিত করেন।
✓তাঁর যোগ্য সন্মান মরহুম কাজী নুমান আহমদ এবং তাঁর‌ই কৃতি সন্তান সাবেক পাঁচ বারের সংসদ সদস্য ও ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ও মুরাদনগর মাদ্রাসার বর্তমান মুতাওয়াল্লী জনাব আলহাজ্ব কাজী শাহ মুফাজ্জল হোসাইন কায়কোবাদ সাহেব সহ তাঁর ভাইগণ সারাদেশের মসজিদ, মাদ্রাসা এবং আলেম উলামা তথা দ্বীনের বহুবিধ খিদমাত আঞ্জাম দিয়ে যাচ্ছেন।
সম্প্রতি মুরাদনগরে "স্থানীয় উলামা মাশায়েখ ও হুফফাজ পরিষদ" নামে একটি সংগঠন প্রতিষ্ঠিত হয়। তারা মুরাদনগরের প্রয়াত আলেম এবং হাফেজদের নামের একটি তালিকা প্রকাশ করেন। কিন্তু অত্যন্ত আফসোস এবং পরিতাপের সাথে আমরা লক্ষ্য করেছি, তারা সেই তালিকায় মুরাদনগরের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় এ মহান বুজুর্গের নাম বাদ দিয়েছে যা সবার উপরে থাকার কথা ছিলো। নূন্যতম বিবেকবান কোনো মানুষ এটি দেখলেই বুঝবে, ঐ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতাদের সকলেই মুরাদনগর মাদ্রাসার সাবেক ছাত্র এবং শিক্ষক হ‌ওয়ার পরেও হযরত মুজাফ্ফার আহমদ রহ. নাম বাদ দেয়া কোনো ভুল নয় বরং তা উদ্যেশ্য প্রণোদিত। যিনি মুরাদনগর মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করার পূর্বে এ অঞ্চলে কোনো কওমী মাদ্রাসার অস্তিত্বই ছিলো না, তার নামটি বাদ দেয়া কতবড় জুলুম। তারা কী হযরত মুজাফ্ফার আহমদের নাম মুছে ফেলতে পারবে? এমন ভুঁইফোড় বহু সংগঠন হয়েছে, হবে এবং একদিন হারিয়ে যাবে। কিন্তু মুসলিহে উম্মাত হযরত মুজাফ্ফার রহ. এর নাম অমর হয়ে থাকবে ইতিহাসে এবং মানুষের হৃদয়ে।
সুতরাং এমন নেক্কারজন কাজ যারা করেছে, আমি মুরাদনগর মাদ্রাসার বর্তমান জিম্মাদার হিসেবে এ গর্হিত কাজের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ করছি। তাদেরকে এমন অন্যায়ের জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান করছি। না হয় মুরাদনগরের সকল আলেম অবশ্যই এ সংগঠনকে ঘৃণা ভরে প্রত্যাখ্যান করবে।



www.a2sys.co

আরো পড়ুন